বাচ্চা না হওয়ার সমস্যা প্রসঙ্গে আলোচনা

প্রথমেই এক ভাইয়ের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। হয়ত ছয়মাস আগে বলেছিলাম এই বিষয়ে একটা লেখা লিখবো। দেরি করার জন্য দুঃখিত। এই লেখায় কিছু বিষয় থাকবে যার পক্ষে কোনো প্রমান নেই। কাজেই প্রমাণ চাইলে বিব্রত হব। বুঝে নিতে হবে সেগুলো সতর্কতার জন্য লেখা হয়েছে।

প্রথম কেসঃ ডাক্তারী সমস্যা
চেষ্টা করার পরেও যদি বাচ্চা না হয় তাহলে ভাল ডাক্তার দেখানো উচিত। এমন অনেক কাপল আছেন যারা অল্প চিকিৎসাতেই আলহামদুলিল্লাহ সফল হয়েছেন।

দ্বিতীয় কেসঃ নীল জগতে বসবাস
এটা মূলত পুরুষদের ক্ষেত্রে বলতে হয়। নীল জগতে ঘোরাঘুরি এবং যৌবন হেফাজত না করার কারণে ধীরে ধীরে সক্ষমতা হ্রাস পায় এবং একসময় অক্ষম হয়ে পড়েন। ( মেয়েদের ক্ষেত্রে এটা হয় কিনা জানা নেই।) যেসব ভাই এই জগতের বাসিন্দা এবং এখনো বিয়ে করেন নি তারা এর ভয়াবহতা পুরোপুরি টের পাবেন না। বিয়ের পরে পেতেও পারেন। কাজেই নীল জগত বয়কট করতে হবে। তওবা করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে হবে, ডাক্তারি পরামর্শ নিতে হবে। আল্লাহ চাইলে সক্ষমতা ফিরেও আসতে পারে। (অক্ষমতার বিষয়টি মুক্ত বাতাসের খোজে বইয়ে আছে)

তৃতীয় কেসঃ দেরি করে বিয়ে এবং সন্তান নিতে দেরি
এটাও সন্তান না হবার সম্ভাব্য কারন হতে পারে। ২০ বছর বয়সি তরুন-তরুনী সন্তান জন্মদানের সক্ষমতা এবং ৩০ বছর বয়সি যুবক-যুবতীর সন্তান জন্মদানের সক্ষমতা সমান না হবারই কথা। কাজেই বিয়ের পরে কিছুদিন ফুর্তি করি ভাবনার ভাই-বোনরা সময় থাকতে সাবধান হয়ে যান।

সন্তানের জন্মরোধের বিভিন্ন ব্যবস্থা স্বাভাবিক অবস্থায় ইসলাম পছন্দ করে না।* কাজেই এসব থেকে দূরে থাকবেন। যারা এসবের মধ্যে আছেন তারা ফিরে আসবেন।(বিস্তারিত হালাল-হারাম, লেখক মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ রাহমানী)

চতুর্থ কেসঃ জ্বিন-যাদু সংক্রান্ত সমস্যা
জ্বি, জিন যাদু সংক্রান্ত সমস্যার কারণেও সন্তান জন্মদানে স্বামী/স্ত্রী অপারগ হয়ে থাকতে পারেন। এসব ক্ষেত্রে রুকইয়াহ করা উচিত। সমস্যা স্ত্রীর হলে স্ত্রী করবে রুকইয়াহ, স্বামীর হলে স্বামী করবে রুকইয়াহ। একজন রুকইয়াহ করলে অপরজন ধৈর্য্য ধরে তাকে হেল্প করবে। কিভাবে রুকইয়াহ করতে হবে তা এই লিংকে গেলে পরিষ্কার বোঝা যাবে ইন শা আল্লাহ- গর্ভের সন্তান নষ্ট করার যাদু : যাদুগ্রস্ত ১০

নোটঃ যার মধ্যে জিনের প্রবলেম আছে অত্যধিক বা রুকইয়াহ করতে গেলে জিনের প্রবলেম শুরু হয়ে যায় তিনি সতর্কতা সাথে রাক্বির খোজ নিয়ে তার কাছে গিয়ে রুকইয়াহ করাবেন। আর যদি নিজের কোনো লোককে দিয়ে করাতে চান তাহলে নিচের লিংক থেকে জ্বিন সিরিজ কয়েকবার রিভিশন দিয়ে নিতে বলবেন। https://ruqyahbd.org/blog/category/jinn-possession

পঞ্চম কেসঃ কোনো সমস্যা নেই। তাও হচ্ছে না।
এ ক্ষেত্রে বেশি বেশি দুয়ার আমল করা। নিজেদের মধ্যে ভালবাসা বাড়ে এমন আমল করা। তাবিজ, কবিরাজ থেকে দূরে থাকা। বেশি বেশি এস্তেগফার করা। তাহাজ্জুদ পড়ে আল্লাহর কাছে দুয়া করা। দান সদকার ক্ষেত্রে উদারতা প্রদর্শন করা। এককথায় আল্লাহর কাছে চাইতেই থাকা, চাইতেই থাকা, যতক্ষন পর্যন্ত পাওয়া না যায়।

আল্লাহর আপনাদের নেকবাসনা গুলো পূরণ করে দিন। আমীণ।

Facebook Comments

Default Comments (0)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

35 − = twenty five