শীতকালে রুকইয়াহর গোসল

 গরম পানিতে রুকইয়াহ গোসল করা যাবে কি?
উত্তরঃ উস্তাদ তিম হাম্বলের ভাষায়, “আমার কাছে যে অল্পকিছু তথ্য আছে তাতে বোঝা যায় ঠাণ্ডা পানি দিয়ে রুকইয়াহর গোসল করাই উত্তম, কিন্তু তা একবারে নিশ্চিত করে বলার মত যথেষ্ঠ নয়। আমি লোকজনের জন্য কষ্টকর করতে চাই না। কাজেই কারও যদি গরম পানি ব্যবহার করার দরকার হয় তাহলে গরম পানি ব্যবহার করবে।”ঠান্ডা পানিতে গোসল করলে সর্দি লেগে যেতে পারে। কি করনীয়?

– উপরে যেভাবে বলা হল প্রয়োজনে সেভাবে করবেন গোসল। আর প্রতিদিন অল্প হলেও কালোজিরা, মধু খাবেন। এজমার টান উঠলে, সর্দি লাগলে ঠাণ্ডার রুকইয়াহ করতে পারেন। হিজামাও উপকারী হবে ইনশাআল্লাহ। বিস্তারিতে এখানে। 

শীতকালে একদিন পরপর রুকইয়াহ গোসল করলে কি সমস্যা হবে? বা রুকইয়াহ রেজাল্ট তুলনামূলক খারাপ আসবে?

– প্রতিদিন করা উচিত। প্রতিদিন করলে যেমন রেজাল্ট পাওয়া যাবে গ্যাপ দিয়ে করলে তেমন পাওয়া যাবে না। একান্ত বাধ্য হলে গ্যাপ দিয়েই করবেন।

ডিটক্স এর গোসল সকালে না করে একটু দেরীতে করলে বা দুপুরে করলে হবে?

– সুবিধামত করতে পারবেন। অসুবিধা নেই।

পুরো চুল ভেজাতে হবে?

– বদনজরের রুকইয়াহ হলে পুরো চুল ভেজানো উচিত। অন্যান্য গোসলের জন্য হলে মাথার তালু ভিজালেই হবে ইনশাআল্লাহ।

আরও কোন প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন পাওয়া গেলে যোগ করা হতে পারে।

Leave a Reply

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventy one − = sixty one