রুকিয়া করলেই কি বিয়ে হবে, মনের আশা পূর্ণ হবে?

যারা প্রায়ই “মনের আশা পূরণ হওয়ার” বা “দ্রুত বিয়ের হওয়ার” এধরণের আমল/তদবির/ উপায় খুঁজেন, তাদের উদ্দেশ্যে এবং বিশেষত নিজেকে নসীহাহ প্রদানের উদ্দেশ্যে বলছি।

ইসলাম কোন শর্টকাট ধর্ম নয়। ইসলামে শর্টকাট বলে কিছু নেই। ইসলাম খ্রীষ্টিয়ানিটির মত কোন ধর্ম নয়, যেখানে সপ্তাহে ৬ দিন যা খুশি করে বেরাবো আর রবিবার চার্চে গিয়ে ফাদারের কাছে দোষ স্বীকার করে পূণ্যবান হয়ে যাবো।

ইসলাম আপনাকে স্বয়ং স্রষ্টার সাথে একটি কন্টিনিউয়াস কানেকশন বিল্ড আপ করতে বলে। এর সবচে বড় প্রমাণ হলো, স্বলাত। দৈনিক পাচ বার স্বলাত ওয়াক্ত অনুযায়ী আদায় করা ফারদ্ব। একটু চিন্তা করলেই বুঝা যায়, কেন আল্লাহ ৫ বারের বিধান দিলেন? কেন ৫ ওয়াক্তের নামাজ জমিয়ে রেখে এক ওয়াক্তে সব গুলো আদায় করে দিলে নামাজ হবে না? কারণ আল্লাহ আমাদেরকে তার স্মরণ থেকে উদাসীন হতে দিতে চান না। দৈনন্দিন কাজের মাঝে যখন আমরা দুনিয়ার স্রোতে মিশে যাই, তখনই অন্তরে আল্লাহর স্মরণ আনার জন্য আল্লাহ ওয়াক্তে ওয়াক্তে স্বলাতের বিধান রেখেছেন। যেন আপনার অন্তর আল্লাহর স্বরণ বিমুখ না হয়ে যায়। ঠিক তেমনি ইসলামে কোন পীর ধরে কেউ জান্নাতে যেতে পারবে না। ঈমান ও আমলে সলেহ অবশ্যই লাগবে।

তাই যারা মনের আশা পূরণের জন্য দু’আ চাচ্ছেন তাদের বলবোঃ ইসলাম এমন কোন যিকর/দু’আ/স্বলাত দেয় নি যে আমি নির্দিষ্ট কিছু আমল করলাম আর আমার মনের আশা পূরণ হয়ে যাবে। এরপর আমি আবার আল্লাহর স্মরণ থেকে উদাসীন হয়ে যাবো। বরঞ্চ ইসলাম আপনকে কন্টিনিউয়াস আল্লাহর ইবাদাত করতে বলে। তাই যদি আপনি সত্যিই চান আপনার মনের আশা পূরণ হোক, তাহলে “মনের আশা দ্রুত পূরণ হওয়ার” কনসেপ্ট ঝেড়ে ফেলুন। এর পরিবর্তে আল্লাহর সাথে দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক গড়ে তুলুন। তাহাজ্জুদ পড়ুন। আল্লাহর কাছে কন্টিনিউয়াসলি চাইতে থাকুন। আল্লাহতো আপনার চাওয়া পাওয়া শুনতে শুনতে ক্লান্ত হন না। তাহলে আপনিই বা কেন চাইতে গিয়ে ক্লান্ত বোধ করবেন। গুনাহ থেকে বেচে থাকুন। আপনি আল্লাহর অবাধ্যতায় লিপ্ত থাকবেন, আর আল্লাহ আপনার আশা পূরণ করে দিবেন এটা মরিচীকা ছাড়া আর কিছুই না। দু’আ কবুলের সময়, স্থান, শর্ত গুলো জেনে নিন, সেই শর্ত অনুযায়ী দু’আ করতে থাকুন। হালাল উপার্জন থেকে আহার করুন। কারণ আল্লাহ পবিত্র, এবং তিনি পবিত্রতা ছাড়া কিছুই কবুল করেন না। নিয়মিত স্বলাতুল হাজত পড়ুন। নিজের চাওয়া-পাওয়া, যাবতীয় সমস্যা আল্লাহকে খুলে বলুন। আর সর্বোপরি আল্লাহর সম্পর্কে ভালো ধারণা পোষণ করুন। ইনশাআল্লাহ্‌, আল্লাহ আপনার মনের হালাল আশা পূরণ করে দিবেন।

কৃতজ্ঞতাঃ আনা ফুলান ভাই।

Leave a Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty seven − = 25