Ruqyah Support BD

হারাম দিয়ে চিকিৎসা উপকারী নাকি অপকারী?

Advertisement
যখন একজন মুসলিম কোনো বস্তুকে হারাম হওয়ার বিশ্বাস পোষণ করে তখন তার এই বিশ্বাস, বরকত ও উপকার উভয়ের মাঝে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। তার সু-ধারণা দোদুল্যমান হয়ে যায় এবং প্রকৃতির স্বাভাবিক গ্রহণীয়তার মাঝেও সন্দেহ তৈরি হতে থাকে। বিষয়টি আরও গভীর দেখলে বলা যায়, যখন বান্দার ইমান তুলনামূলক বেশি হয় তখন বস্তুর হারাম হওয়ার বিশ্বাস তার কাছে ঐ বস্তু ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আরও বেশি অপছন্দনীয় ও ঘৃণিত হয়ে উঠে। অনুরূপ প্রকৃতগতভাবেও তা ঐ ব্যক্তির কাছে মন্দ বলে বিবেচিত হয়। আর এই অবস্থায় যখন সে হারাম বস্তু দিয়ে চিকিৎসা করে তখন তা তার জন্য রোগে বা ভাইরাসে পরিণত হয়। তবে হ্যাঁ, যদি হারাম বস্তুর ক্ষেত্রে ব্যক্তির বিশ্বাসের মাঝে নড়বড়ে ভাব সৃষ্টি হয়, মন্দ ধারণা দূর হয় এবং অপছন্দের পরিবর্তে ভালোবাসতে থাকে তাহলে হারাম বস্তু দিয়ে চিকিৎসা করে উপকৃত হতে পারে।
তবে হারাম বস্তুর ক্ষেত্রে মুমিন ব্যক্তির এমন বিশ্বাস ও অবস্থান তৈরি হওয়া ইমানের পরিপন্থী। সুতরাং একজন মুমিন ব্যক্তি কোনোভাবেই কুরআন-সুন্নায় স্পষ্টভাবে বর্ণিত কোনো হারাম বস্তু দিয়ে চিকিৎসা সেবা হিসাবে গ্রহণ করতে পারে না। যদি করেও থাকে তাহলে তা ঐ মুমিন ব্যক্তির জন্য রোগের নিরাময় নয়; বরং রোগের ভাইরাস হিসাবে পরিণত হবে। আল্লাহ তাআলা সর্বজ্ঞাত।
আত-তিব্বুন নববী-২২২
[উল্লেখ্য করলাম কবিরাজ/তাবীজ প্রসঙ্গে]